হায়েজ/ঋতুস্রাব/ মাসিকের কত দিন পর নামাজ আদায় করা যাবে?


প্রশ্নঃ মহিলারা মাসিক শেষ হওয়ার কত দিন পর নামায আদায় করতে পারবেন?

উত্তরঃআমাদের অনেকেরই পিরিয়ড সম্পর্কে সঠিক ধারণা নেই। অনেকেই এই বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে লজ্জা পান। অনেকেই জানেন না পিরিয়ড হলে কতদিন পর্যন্ত নামাজ-রোজা করা থেকে বিরত থাকতে হয়। ইসলাম এ সম্পর্কে সুষ্টু ও সঠিক ধারণা দিয়েছেন।

শরীয়তের পরিভাষায় পিরিয়ডকে হায়েয বলা হয়। পিরিয়ডের সময়সীমা সর্বনিম্ন ৩দিন ৩ রাত এবং সর্বাধিক ১০দিন ১০ রাত। এ সময়গুলোতে নামাজ পড়া নিষেধ।হায়েজের সময়সীমা নিয়ে অনেক মতভেদ লক্ষ্যণীয়।

হায়েজ অবস্থায় নামাজ পুরোপুরি মাফ হয়ে যায় এবং পরে কাজা নামাজও পড়তে হয় না। কিন্তু রোজা সাময়িকভাবে বাদ হয় এবং পরে রোজার কাজা আদায় করে নিতে হয়।

যখন তাঁর তাহারত হাসিল হবে, অর্থাৎ ব্লিডিং বন্ধ হয়ে যাবে, তখন তাঁদের ওপর ওয়াজিব হচ্ছে গোসল করা। গোসল করার পরে তিনি সালাত আদায় করবেন। যেমন, জোহরের ওয়াক্ত শেষ হয়ে গেছে আর আসরের ওয়াক্ত শুরু হয়েছে, এ সময় তিনি তাহারাত হাসিল করেছেন, তখন তিনি গোসল করবেন, গোসলের পরে তিনি জোহর ও আসর দুই সালাত আদায় করবেন। তখন থেকে তাঁর সালাতের বিধান শুরু হবে। এখানে অপেক্ষা করার কোনো সুয়োগ নেই। তিনি নিশ্চিত হওয়ার পরে গোসল করবেন, সালাত আদায় করবেন এবং সিয়ামও পালন করতে পারবেন।

যদি কারো ১০দিন এর কম স্রাব হয় এবং এমন সময়ে গিয়ে পিরিয়ড শেষ হয় যে খুব তাড়াতাড়ি ফরজ গোসল করে নেয়ার পর একবার আল্লাহু আকবর বলার সময় থাকে, তবে সেই ওয়াক্তের নামাজ পড়তে হবে। এমন অবস্থায় নামাজ শুরু করার পর ওয়াক্ত শেষ হয়ে গেলেও নামাজ শেষ করতে হবে।

আল্লাহ তা‘আলা বলছেন, “তারা তোমাকে নারীদের ঋতুস্রাব সম্পর্কে জিজ্ঞেস করে; তুমি বলে দাও, সেটা হচ্ছে কষ্টদায়ক বস্তু”। (সূরা বাকারা: ২২২)


Leave a Reply

Your email address will not be published.